বগুড়া ০২:৪০ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম ::
Logo কাহালুর বীরকেদার ইউনিয়নে বিএনপির গণ-সংযোগ ও লিফলেট বিতরণ অনুষ্ঠিত Logo কাহালুর শেখাহার দ্বি-মূখী উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ Logo আদমদিঘীতে সড়ক দুর্ঘটনায় এক শিশু নিহত Logo বগুড়ায় মাসিক কল্যাণ সভায় শ্রেষ্ঠ নির্বাচিত শেরপুর থানা Logo র‍্যাবের যৌথ অভিযানে আটক ৬ Logo বগুড়ায় ছুরিকাঘাতে এক যুবক নিহত Logo কাহালু প্রেসক্লাবের নতুন কমিটি গঠন সম্পর্কে সিনিয়র সহ আট সাংবাদিকের বিবৃতি প্রদান Logo কাহালুতে বিএনপির গণ-সংযোগ ও লিফলেট বিতরণ Logo যুবলীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ চান বিএনপি জামায়াতের নাশকতা মামলার আসামী Logo সান্তাহারে ট্রেনের টিকিট কালোবাজারি চক্রের সদস্য গ্রেফতার
নোটিশ ::
"বগুড়া বুলেটিন ডটকম" এ আপনাকে স্বাগতম। বগুড়ার প্রত্যেক উপজেলায় ১জন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। ফাঁকা উপজেলাসমূহ- সদর, শাজাহানপুর, ধনুট, শেরপুর, নন্দীগ্রাম

পরকীয়া প্রেমিককে হত্যার পর মাটি চাপা, স্বামী-স্ত্রী গ্রেফতার

বগুড়া বুলেটিন ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৫:১৩:২৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / 76
আজকের জার্নাল অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

জয়পুরহাটে লাউ গাছের নিচে মাটি খুঁড়তে গিয়ে নাঈম নামে এক যুবকের হাড়গোড় উদ্ধারের ঘটনায় হত্যাকারী স্বামী-স্ত্রীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। বুধবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সকালে তাদের আদালতে পাঠানো হবে।

গ্রেফতাররা হলেন- বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার গোপীনাথপুর গ্রামের মোজাম্মেল আলীর ছেলে রেজ্জাকুল ও তার স্ত্রী সাবিনা খাতুন। তারা পাঁচবিবির ধরঞ্জী গ্রামে ভাড়া বাসায় থাকতেন।

জয়পুরহাট র‌্যাব ক্যাম্পের ভারপ্রাপ্ত কোম্পানি কমান্ডার রফিকুল ইসলাম জানান, ২২ এপ্রিল ঈদের দিন সন্ধ্যায় পাঁচবিবি উপজেলার ধরঞ্জী গ্রামের মাসুদ রানার ছেলে নাঈম বাড়ি থেকে বের হয়ে যান। এরপর তাকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি। নিখোঁজের তিনদিন পেরিয়ে গেলেও বিভিন্ন আত্মীয়স্বজনের বাড়িতে অনেক খোঁজাখুঁজির পরও সন্ধান না পেয়ে ২৫ এপ্রিল থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন নাঈমের পরিবার।

এরপর ৯ সেপ্টেম্বর ধরঞ্জী গ্রামের সামছুল ইসলামের বাড়িতে রাজমিস্ত্রিরা নতুন শৌচাগার নির্মাণের জন্য মাটি খনন করতে যায়। এসময় ওই স্থানে লাউ গাছের নিচের মাটি খুঁড়তে গিয়ে দুর্গন্ধ বের হয়। পরে পুলিশ এসে সেখানের মাটি খুঁড়ে একটি প্যান্ট ও মাথার খুলিসহ হাড়ের স্তূপ উদ্ধার করে। যা এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যর সৃষ্টি করে।

এঘটনায় নাঈমের মা ১০ সেপ্টেম্বর বাড়ির মালিকসহ তিনজনের নামে মামলা করেন। সে মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, সাবিনার সঙ্গে নাঈমের পরকীয়া সম্পর্ক ছিল। সেই পরকীয়া সম্পর্কের জেরে পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী নাঈমকে হত্যা করে মরদেহ মাটি চাপা দেন আসামিরা।

মামলার পর পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাবও তদন্তে নামে। অন্যদিকে আসামিরা আত্মগোপনে চলে যায়। এরপর মঙ্গলবার (১২ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাতে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-৫ ও র‌্যাব-১২ যৌথ অভিযান চালিয়ে বগুড়া সদর উপজেলার পীরগাছা এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

পরকীয়া প্রেমিককে হত্যার পর মাটি চাপা, স্বামী-স্ত্রী গ্রেফতার

আপডেট সময় : ০৫:১৩:২৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩

জয়পুরহাটে লাউ গাছের নিচে মাটি খুঁড়তে গিয়ে নাঈম নামে এক যুবকের হাড়গোড় উদ্ধারের ঘটনায় হত্যাকারী স্বামী-স্ত্রীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। বুধবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সকালে তাদের আদালতে পাঠানো হবে।

গ্রেফতাররা হলেন- বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার গোপীনাথপুর গ্রামের মোজাম্মেল আলীর ছেলে রেজ্জাকুল ও তার স্ত্রী সাবিনা খাতুন। তারা পাঁচবিবির ধরঞ্জী গ্রামে ভাড়া বাসায় থাকতেন।

জয়পুরহাট র‌্যাব ক্যাম্পের ভারপ্রাপ্ত কোম্পানি কমান্ডার রফিকুল ইসলাম জানান, ২২ এপ্রিল ঈদের দিন সন্ধ্যায় পাঁচবিবি উপজেলার ধরঞ্জী গ্রামের মাসুদ রানার ছেলে নাঈম বাড়ি থেকে বের হয়ে যান। এরপর তাকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি। নিখোঁজের তিনদিন পেরিয়ে গেলেও বিভিন্ন আত্মীয়স্বজনের বাড়িতে অনেক খোঁজাখুঁজির পরও সন্ধান না পেয়ে ২৫ এপ্রিল থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন নাঈমের পরিবার।

এরপর ৯ সেপ্টেম্বর ধরঞ্জী গ্রামের সামছুল ইসলামের বাড়িতে রাজমিস্ত্রিরা নতুন শৌচাগার নির্মাণের জন্য মাটি খনন করতে যায়। এসময় ওই স্থানে লাউ গাছের নিচের মাটি খুঁড়তে গিয়ে দুর্গন্ধ বের হয়। পরে পুলিশ এসে সেখানের মাটি খুঁড়ে একটি প্যান্ট ও মাথার খুলিসহ হাড়ের স্তূপ উদ্ধার করে। যা এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যর সৃষ্টি করে।

এঘটনায় নাঈমের মা ১০ সেপ্টেম্বর বাড়ির মালিকসহ তিনজনের নামে মামলা করেন। সে মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, সাবিনার সঙ্গে নাঈমের পরকীয়া সম্পর্ক ছিল। সেই পরকীয়া সম্পর্কের জেরে পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী নাঈমকে হত্যা করে মরদেহ মাটি চাপা দেন আসামিরা।

মামলার পর পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাবও তদন্তে নামে। অন্যদিকে আসামিরা আত্মগোপনে চলে যায়। এরপর মঙ্গলবার (১২ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাতে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-৫ ও র‌্যাব-১২ যৌথ অভিযান চালিয়ে বগুড়া সদর উপজেলার পীরগাছা এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।