বগুড়া ১১:২৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১০ ডিসেম্বর ২০২৩, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
নোটিশ ::
"বগুড়া বুলেটিন ডটকম" এ আপনাকে স্বাগতম। বগুড়ার প্রত্যেক উপজেলায় ১জন করে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে। ফাঁকা উপজেলাসমূহ- সদর, শাজাহানপুর, ধনুট, শেরপুর, নন্দীগ্রাম

দিনাজপুরে স্বামী-স্ত্রীর ঝগড়া মীমাংসা করতে গিয়ে দায়ের আঘাতে প্রতিবেশী নিহত, আটক ১

এনামুল মবিন সবুজ,দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৫:৩১:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৭ জুন ২০২৩
  • / 124
আজকের জার্নাল অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি
দিনাজপুরে স্বামী-স্ত্রীর ঝগড়ার মীমাংসা করতে গিয়ে দায়ের আঘাতে ১ ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এই ঘটনায়  ১ জনকে আটক করেছে পুলিশ।
বুধবার (৭ জুন) রাত সাড়ে ৯টায় সদর উপজেলা আস্করপুর ইউনিয়নের মুকুন্দপুর এলাকায় এই হত্যাকাণ্ড ঘটে এবং ভোর ৪টার দিকে অভিযান চালিয়ে নূর মোহাম্মদ(৬০) কে আটক করা হয়।
নিহত আব্দুস সোবহান(৪২) মুকুন্দপুর ইউনিয়নের সুন্দরা মাঝাপাড়া এলাকার আমিনুদ্দিন ইসলামের ছেলে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নূর মোহাম্মদ সুন্দরা মাঝাপাড়া এলাকায় স্ত্রীসহ বাস করতেন। ১ বছর আগে নূর মোহাম্মদ ও তার স্ত্রী সাবিনাসহ মুকুন্দপুর গ্রামে গিয়ে বাস করা শুরু করেন। কলহ নিয়ে নূর মোহাম্মদ ও তার স্ত্রী সাবিনার সঙ্গে প্রায় ঝগড়া লেগে থাকত।গত মঙ্গলবার রাতে কলহ মীমাংসার জন্য বৈঠক ডাকা হয়। বৈঠকে নূর মোহাম্মদের শ্বশুর জয়নাল আবেদীন, ইউনিয়নের সাবেক সদস্য মোতাহারসহ সোবহান, শাহাজান, হামিদুলসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু নূর মোহাম্মদ উপস্থিত না থাকায় তাকে বাড়ি থেকে ডাকার জন্য প্রতিবেশী সোবহানকে পাঠানো হয়। তিনি বাড়িতে ডাকতে গেলে নূর মোহাম্মদ দা দিয়ে সোবহানের ঘাড়ে আঘাত করেন। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান সোবহান।
দিনাজপুর কোতয়ালি থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ তানভিরুল ইসলাম জানায়, ভোরে অভিযান চালিয়ে নূর মোহাম্মদকে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

দিনাজপুরে স্বামী-স্ত্রীর ঝগড়া মীমাংসা করতে গিয়ে দায়ের আঘাতে প্রতিবেশী নিহত, আটক ১

আপডেট সময় : ০৫:৩১:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ৭ জুন ২০২৩
দিনাজপুরে স্বামী-স্ত্রীর ঝগড়ার মীমাংসা করতে গিয়ে দায়ের আঘাতে ১ ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এই ঘটনায়  ১ জনকে আটক করেছে পুলিশ।
বুধবার (৭ জুন) রাত সাড়ে ৯টায় সদর উপজেলা আস্করপুর ইউনিয়নের মুকুন্দপুর এলাকায় এই হত্যাকাণ্ড ঘটে এবং ভোর ৪টার দিকে অভিযান চালিয়ে নূর মোহাম্মদ(৬০) কে আটক করা হয়।
নিহত আব্দুস সোবহান(৪২) মুকুন্দপুর ইউনিয়নের সুন্দরা মাঝাপাড়া এলাকার আমিনুদ্দিন ইসলামের ছেলে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নূর মোহাম্মদ সুন্দরা মাঝাপাড়া এলাকায় স্ত্রীসহ বাস করতেন। ১ বছর আগে নূর মোহাম্মদ ও তার স্ত্রী সাবিনাসহ মুকুন্দপুর গ্রামে গিয়ে বাস করা শুরু করেন। কলহ নিয়ে নূর মোহাম্মদ ও তার স্ত্রী সাবিনার সঙ্গে প্রায় ঝগড়া লেগে থাকত।গত মঙ্গলবার রাতে কলহ মীমাংসার জন্য বৈঠক ডাকা হয়। বৈঠকে নূর মোহাম্মদের শ্বশুর জয়নাল আবেদীন, ইউনিয়নের সাবেক সদস্য মোতাহারসহ সোবহান, শাহাজান, হামিদুলসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু নূর মোহাম্মদ উপস্থিত না থাকায় তাকে বাড়ি থেকে ডাকার জন্য প্রতিবেশী সোবহানকে পাঠানো হয়। তিনি বাড়িতে ডাকতে গেলে নূর মোহাম্মদ দা দিয়ে সোবহানের ঘাড়ে আঘাত করেন। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান সোবহান।
দিনাজপুর কোতয়ালি থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ তানভিরুল ইসলাম জানায়, ভোরে অভিযান চালিয়ে নূর মোহাম্মদকে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।